Baby Care

দিন মেনেই টিকা দিন বাচ্চাকে। শিশুর সুস্থতায় সতর্ক হোন আজ থেকেই!

দিন মেনেই টিকা দিন বাচ্চাকে। শিশুর সুস্থতায় সতর্ক হোন আজ থেকেই!

সঠিক সময় টিকা দেওয়ানো কেন জরুরি ?

  • রোগ থেকে মুক্তি:বেশ কিছু রোগের জীবাণুর পক্ষে শিশুদের আক্রমণ করাটা সুবিধাজনক। কারণ শিশুদের প্রতিরোধ ক্ষমতা একেবারে কম। ভ্যাকসিন বা টিকা দেওয়ার প্রধান লক্ষ্য হল এই রোগগুলোকে শিশুর জীবন থেকে দূরে রাখা  টিকাকরণের মাধ্যমে শিশুর শরীর ভাইরাসগুলোর বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ক্ষমতা অর্জন করে।
  • রোগপ্রতিরোধক্ষমতা বৃদ্ধি:খুকু বা খোকার ছোট্ট শরীর বাইরের পৃথিবীর সঙ্গে মানিয়ে নিতে সময় নেয়। তাই ওর রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলা দরকার। চিকিৎসকদের কথায়, টিকা বা ভ্যাকসিন এই কাজই করে (Building Immunity Power)। জন্মের পর শিশুর শরীরে প্রথম কয়েক বছর অনেক অ্যান্টিবডিই তৈরি হয় না। এতে বেশ কিছু রোগের ভাইরাস সহজেই আক্রমণের সুযোগ পায়। টিকা শিশুর শরীরে প্রয়োজনীয় অ্যান্টিবডি তৈরি করতে সাহায্য করে।
  • ুটিনে ব্যাঘাত:ছোট্ট খুকু রোজ স্কুল যায় মায়ের হাত ধরে‌। স্কুলেই একদিন সে অসুস্থ হয়ে পড়ল। জানা গেল, ঠিক সময়ে ওই রোগের ভ্যাকসিন নেওয়া হয়নি বলেই এই অবস্থা। পড়াশোনা বন্ধ করে দু’মাস শয্যাশায়ী অবস্থায় কাটলো। একটা টিকা বাদ পড়লে এ ভাবেই নষ্ট হয় বহুমূল্য সময়।
  • পরিবার ও সমাজের সুরক্ষা:বেশ কিছু রোগের ভাইরাস সহজেই একজনের থেকে আশেপাশের পরিবেশে ছড়িয়ে পড়ে। এতে একাধিক মানুষের শরীরে রোগটি সংক্রামিত হয়। অথচ এমন কিছু রোগ টিকাকরণের মাধ্যমে সহজেই এড়িয়ে চলা যায়। তাই শিশুর টিকাকরণ সমাজের জন্যও গুরুত্বপূর্ণ।
  • টিকা নিরাপদ ও কার্যকরী:টিকাকরণের ফলে ব্যক্তিবিশেষে কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়। অনেক শিশু আবার সিরিঞ্জ দেখলেই কেঁদে ওঠে। কিন্তু এই ভয় বা ব্যথা খুব কম সময়ের জন্য স্থায়ী হয়। বরং টিকা থেকে পাওয়া প্রতিরোধ ক্ষমতা সারাজীবন শিশুর শরীরকে রক্ষা করে

টিকার দিন পেরিয়ে গেলে কী কী ঝুঁকির আশঙ্কা থাকে ?

  • রোগাক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা
  • রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতার অভাব
  • সংক্রমণের আশঙ্কা

কোন ক্ষেত্রে টিকা দেওয়ায় দেরি করা যেতে পারে ?

  • প্রচন্ড জ্বর
  • এলার্জি

টিকা দেওয়ার পর কী কী পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে ?

  • হালকা জ্বর
  • ব্যথা ও ফুলে যাওয়া
  • পেশিতে ব্যথা